বয়স ৫২, অথচ তিনি তারুণ্যকে আটকে রেখেছেন!

তারুণ্য ধরে রাখতে কে না চায়! নারী হোক, কিংবা পুরুষ – প্রত্যেকেই চান নিজের বয়স ও স্বাস্থ্যকে একটা নির্দিষ্ট সময়ে আটকে রাখতে। তবে, বয়সকে আটকে ফেলাটা সব সময় বিউটি প্রোডাক্ট দিয়ে হয় না। এর জন্য প্রয়োজন হয় স্বাস্থসম্মত একটা জীবন ব্যবস্থা।

এবার তেমনই একটা জীবনধারার গল্প বলতে চলেছি। গল্পের প্রধান কুশীলব হলেন পুষ্পা দেবী নামের এক ‘তরুণী’। ইন্দোনেশিয়ার জাকার্তায় তাঁর বসবাস। অপেশাদার হলেও তিনি সাঁতার ও ব্যাডমিন্টনে বেশ দক্ষ। মূলত তিনি একজন উদ্যোক্তা।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় তার কিছু ছবি বেশ ভাইরাল হয়েছে। না, তার সৌন্দর্য্যের জন্য নয়, তার বয়সের জন্য।

ভাবতে অবাক লাগলেও এটাই সত্যি যে, এই নারীর বয়স ৫২। কী, ভাবতেই অবাক লাগছে তো। ছবি গুলোতে তাঁকে দেখে তো বয়স ১৮-১৯ বলে মনে হচ্ছে। তাই না?

ক’দিন আগেই ছিল পুষ্পার ৫২ তম জন্মদিন। পরিবারের সাথে দিনটি উদযাপন করেন তিনি। পরিবারে আছে স্বামী, দুই ছেলে ও এক মেয়ে। কেক কেটে উদযাপন করেন জন্মদিন।

ছেলেদের সাথে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করা ছবি দেখে মনে হতে পারে তারা স্রেফ বন্ধু। শুধু মনে হওয়া নয়, অনেকেই আসলে এমনটা ভেবে বসেছেন।

এত বয়সেই শরীরকে ধরে রাখার রহস্য কী? পুষ্পা মনে করেন জিনগত সহায়তার সাথে এখানে কাজ করেছে নিয়মিত শরীরচর্চা ও খাদ্যাভ্যাস। একই সাথে এটাও জানালেন, সুখে থাকাই তাঁর স্বাস্থ্যের মূল রহস্য। নিজের বয়সটা লুকিয়ে রাখতেই পছন্দ করেন তিনি।

বললেন, ‘লোকে বলে, আমার বয়স যত বাড়ছে ততই আমাকে তরুণ দেখাচ্ছে। আসলে রহস্যটা হল আমি এখন আগের থেকে অনেক বেশি সুখে আছি। বাচ্চারা বড় হয়ে গেছে। আমি ব্যবসা চালাচ্ছি। সব কিছু ঠিকঠাক চললে তার প্রভাব তো শরীরে দেখা যাবেই।’

চায়না গ্লোবাল টিভি নেটওয়ার্ক  ও এলিট রিডার্স অবলম্বনে

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।