স্কুলে উপস্থিতির পুরস্কার ‘স্বাস্থ্যসম্মত টয়লেট’

স্কুলে উপস্থিত থেকে যদি রোজ ১০ টাকা করে পাওয়া যায়, তবে কেমন হয়? কিংবা রোজ উপস্থিতির পুরস্কার হিসেবে যদি স্কুল কর্তৃপক্ষ পরিবারের জন্য স্বাস্থ্যসম্মত টয়লেট বানিয়ে দেয়?

আক্ষরিক অর্থেই এমন ঘটনা ঘটলে ভারতের উত্তর প্রদেশে। বুলান্দশহর অঞ্চলের ৯২ টি পরিবারের সন্তানরা পড়াশোনা করে পরদাদা পরদাদি এডুকেশনাল সোসাইটির স্কুলে। স্কুলের ‍উপস্থিতি ও এলাকার মানুষের স্বাস্থ্য সচেতনতা বাড়াতে অভিনব এই উদ্যোগ নিয়েছে তারা।

নাগরিক অনেক সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত এই অঞ্চলের জন্য এই উদ্যোগ রীতিমত এক টনিক হিসেবে কাজ করছে। দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী গায়ত্রী ভার্মা বলেন, ‘আগে আমাদের খোলা মাঠে কিংবা নদীর ধারে প্রাকৃতিক কর্ম সারতে যেতে হত। কিন্তু, এখন সেটার দরকার হয় না। বরং বাড়ির টয়লেট ব্যবহার করতে আশেপাশের প্রতিবেশিরা আসেন।’

স্কুলটির প্রতিষ্ঠাতা বীরেন্দ্র শ্যাম সিং। যুক্তরাষ্ট্রে ৪০ বছর কাটানোর পর তিনি ফিরেছেন ভারতে। তার প্রতিষ্ঠিত স্কুলের সুবাদে পাল্টে যাচ্ছে এলাকার চিত্র।

স্কুলটি মাত্র ৪৫ জন শিক্ষার্থি নিয়ে যাত্রা শুরু করেছিল ২০০০ সালে। ১৭ বছরের ব্যবধানে শিক্ষার্থীদের সংখ্যা এখন ১৫০০!

– দ্য কোয়াইন্ট অবলম্বনে

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।