স্মিত হাসির সাহসী স্মিতা

তিনি প্রচলিত অর্থে গ্ল্যামারাস ছিলেন না। তবে, তার চোখজোড়া ছিল ভুবন ভোলানো। অগোছালো-সাদামাটা চেহারার মধ্যে দারুণ আত্মপ্রত্যয়ী চোখদুটোই যেন নজর কাড়তো। তার ঠোঁটে ছিল সরল হাসি, শারীরিভাষায় ছিল স্বাধীনচেতা এক নারীর অবয়ব।

নিজের নারী পরিচয়, বলা ভাল বলিউডের নারী চরিত্রকে তিনি যেন নতুন এক মাত্রায় নিয়ে গিয়েছিলেন। আর সেটা করতে গিয়ে সব সময় প্রশংসিত না হলেও সমালোচিত হননি। বরং সাহসিকতার কারণে নন্দিত হয়েছেন। অল্পবয়সেই ঝরে না পড়লে হয়তো স্মিতা পাতিল কিংবন্দন্তি বলেই বিবেচিত হতে বলিউডে।

দূরদর্শনে সংবাদ পাঠিকা হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করেন। সেখান থেকেই স্মিতা নজরে পড়েন প্রখ্যাত নির্মাতা শ্যাম বেনেগালের। তাঁর ‘চরনদাস চোর’ সিনেমা দিয়েই বলিউড যাত্রা শুরু করেন স্মিতা পাতিল। তারপর একই পরিচালকের নিশান্ত ও ভূমিকায় অভিনয় করে প্রশংসিত হন। বিশেষ করে ‘ভূমিকা’য় অভিনয় করে জাতীয় পুরস্কার পাবার পর বেশ আলোচিত হতে থাকেন, আসতে থাকে বহু বাণিজ্যিক ছবির অফার।

কিন্তু, তিনি আর্ট ফিল্মে মনোযোগী হবেন বলে ছবিগুলো ফিরিয়ে দেন।তিনি বলেন যেইসব ছবিতে নারীকে বিকৃত ভাবে উপস্থাপন করা হয়, নারীর সংগ্রাম জীবন কে প্রাধান্য দেয় না সেসব ছবিতে তিনি অভিনয় করবেন না। তবে তিনি এই মতে অটল থাকতে পারেননি, বেশ কয়েক বছর পর বিভিন্ন কারণে বাণিজ্যিক ছবিতে অভিনয় করা শুরু করেন। প্রথম বাণিজ্যিক ছবি অমিতাভ বচ্চনের বিপরীতে ‘নমক হালাল’।

এই গুনী অভিনেত্রীর অন্যান্য ছবিগুলোর মধ্যে আক্রোশ, চক্র, আর্থ, শক্তি, অর্ধ সত্য, মির্চ মাসালা, ড্যান্স ড্যান্স অন্যতম। ‘চক্র’ ছবি দিয়ে দ্বিতীয় বারের মত জাতীয় পুরস্কার অর্জন করেন। একাধিকার ফিল্মফেয়ারও পান। ১৯৮৫ সালে ‘পদ্মশ্রী’ তে ভূষিত হন। মৃনাল সেনের বিখ্যাত বাংলা সিনেমা ‘আকালের সন্ধানে’ সিনেমাতেও অভিনয় করেন।

সেই সময় চলচ্চিত্রাঙ্গনে রাজ বাব্বরের সাথে স্মিতা পাতিলের প্রণয় নিয়ে বেশ আলোচিত ছিল। অনেকটা বাধ্য হয়েই রাজ বাব্বর তাকে বিয়ে করেন। এদের একমাত্র পুত্র সন্তান প্রতীক বাব্বরের জন্মগ্রহনের দুই সপ্তাহের মাথায় মাতৃত্বকালীন সমস্যা জনিত কারণে ১৯৮৬ সালের ১৩ ডিসেম্বর মারা যান। বয়স হয়েছিল মাত্র ৩১ বছর।

পুত্র প্রতীক বাব্বর ও এসেছেন অভিনয় জগতে। ‘জানে তু ইয়া জানে না’, ‘দাম মারো দাম’, ‘ধোবি ঘাট’, ‘মাই ফ্রেন্ড পিন্টো’ কিংবা ‘ইশাক’-এর মত সিনেমা করে তিনি প্রশংসিতও হয়েছেন।

১৯৫৫ সালের আজকের এইদিনে জন্মগ্রহণ করা এই স্বর্গীয় স্বনামধন্য অভিনেত্রীর আজ ৬২ তম জন্মবার্ষিকী। রইলো বিনম্র শ্রদ্ধা।

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।