সাব্বিরের মাঝে বিরাটের ছায়া

ক্যারিয়ারে তিনি খেলেছেন মাত্র আট টেস্টই। এখনই তার ভবিষ্যতের ব্যাপারে ভবিষ্যদ্বানী করা মুশকিল। যদিও, এর মধ্যেই ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বড় ‘কম্প্লিমেন্ট’ পেলে ডান হাতি এই ব্যাটসম্যান।

সাব্বির রহমান রুম্মানের মধ্যে অস্ট্রেলিয়ান অফ স্পিনার নাথান লিঁও সময়ের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যানদের একজন বিরাট কোহলির ছায় খুঁজে পেয়েছেন। জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে চলমান সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম দিন শেষে এই মন্তব্য করেন ৩২ বছর বয়সী লিঁও।

সাব্বির এদিন ৬৬ রানের ইনিংস খেলেন। এরপর এই লিঁও’র বলেই স্ট্যাম্পিংয়ের ফাঁদে পড়ে ফেরেন সাজঘরে। বাংলাদেশের ইনিংস সর্বোচ্চ রানের ইনিংস খেলা বিরাটের প্রসঙ্গে সাব্বির বলেন, ‘ও দারুণ একজন খেলোয়াড়। ওকে দেখলে আমার বিরাটের কথা মনে পড়ে। ওর আদর্শ হিসেবে বিরাটকেই বেছে নেওয়া উচিৎ। ওর মানসিকতা বিরাটের মতই। ক্রিজে এসে ও নিজের মন মত খেলতে শুরু করে। ওকে কখনো খুব একটা রক্ষণাত্মক হতে দেখিনি। ও সব সময় খেলাটা নিজের পক্ষে আনতে চায়। আর এটাই সাহসী ক্রিকেট।’

দিনে বাংলাদেশের টার্নিং পয়েন্ট হল মুশফিকুর রহিম ও সাব্বির রহমান রুম্মানের জুটি। ১১৭ রানে পঞ্চম উইকেটের পতনের পর এই দু’জন এক সাথে ষষ্ঠ ‍উইকেট জুটিতে যোগ করে ১০৫ রান। সাব্বিরের আউটটি যথেষ্ট জলঘোলা করলো শেষ বিকেলে। যদিও, উন্নতমানের টেলিভিশন রিপ্লে নিশ্চিত করলো আউটই ছিলেন সাব্বির। ক্লোজ, বাট ক্লিয়ার।

সাব্বিরকে আউট করে নিজেকে ভাগ্যবান মানছেন লিঁও, ‘ও দারুণ শট খেলছিল। একটু ভাগ্যের সহায় ছিল। আর ক্রিকেটই তো ভাগ্যের খেলা। আর ওকে স্ট্যাম্পিংয়ের ফাঁদে ফেলার সময় সহায় ছিল আমার ভাগ্য। আজ সাব্বির দারুণ খেলেছে। ওকে সমীহ না করে উপায় নেই।’

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।