শূণ্য থেকে শুরু

শূণ্য এমন একটি সংখ্যা যাকে অনেকেই গুরুত্ব দিতে চান না। আবার অনেকেই মনে করেন এখান থেকেই সংখ্যার সূচনা যেহেতু একের আগে শুন্যের অবস্থান। তেমনই একটি ধারণা থেকে উদ্যোগটির নামকরন হল, ‘০ মেগা পিক্সেল’। আপাতত এটা একটা ফেসবুক গ্রুপ, তবে, স্বপ্ন তাদের আকাশ ছোঁয়ার।

বর্তমানে নন প্রফেশনাল-মোবাইল ফটোগ্রাফারদের একটি কমফোর্টের জায়গা।  চলতে ফিরতে অনেক কিছুই আমাদের ভালো লেগে যায়, সেই ভালো লাগাকে ধরে রাখতে কেউ কেউ তার ছবি তুলে রাখেন। কেউ বা ছবি তুলেন এমন সব জিনিসের যা সাধারনভাবে আমাদের চোখ এড়িয়ে যায়। জিরো মেগাপিক্সেল সব রকমের ছবিকেই স্বাগত জানায়।

যে কোন ডিভাইসে তোলা আপনার ভালো লাগার ছবিটি তাদের কাছেও ঠিক ততটাই ভালোলাগার ছবি হয়ে যায়। যেহেতু গ্রুপে নন-প্রফেশনাল  পিক্সেলারের সংখ্যাই বেশী তাই কঠোর সমালোচনার চেয়ে গঠনমুলক আলোচনাকেই বেশী প্রায়োরিটি দিয়ে থাকেন এডমিনরা।

তারা মনে করেন শুরুতেই যদি কাউকে বলা হয়, আপনার ছবিটা ভালো না বা নিয়ম মানা হয়নি তাহলে হয়তো সে আগ্রহই হারিয়ে ফেলবে। বরং তার মধ্যে যদি ছবি তোলার আগ্রহ সৃষ্টির পাশাপাশি ফটোগ্রাফীর প্রতি ভালোবাসা  তৈরি করা যায় এক সময় সে নিজেই ভালো ছবি তুলতে পারবে।

গ্রুপে এমন অনেক মেম্বারই আছেন যারা হয়তো আগে নিজের ছাড়া অন্যকিছুর ছবি তুলতো না এখন নিয়মিত গ্রুপে ছবি পোস্ট করেন। শুধু তাই নয়, প্রথম দিনের চেয়ে তাদের ফ্রেমিং-এডিটিং এখন অনেকটাই ভালো। কখনও বা তাদের ছবিতেই উঠে আসছে নিত্যদিনের গল্প। নিজেই প্রশ্ন করে জেনে নিচ্ছেন ফটোগ্রাফির টুকিটাকি।

প্রথমদিকে এডমিন একা গ্রুপটি পরিচালনার কাজ করলেও বর্তমানে তার ফটোগ্রাফী ক্লাশের বন্ধুরা এতে যুক্ত হয়েছেন। চারজন মিলে গ্রুপটি পরিচালনার কাজ করেন। দেশ ছাড়া বিদেশ থেকেও অনেকে ছবি দিচ্ছেন বেশ আগ্রহের সঙ্গে। ভবিষ্যত নিয়েও কিছু পরিকল্পনার আছে তাদের। ওয়ার্কশপ, ফটোওয়াক সবই এরেঞ্জ করা হবে পরবর্তীতে। কিন্তু প্রথম যে জিনিসটা দরকার তা হল গ্রুপের সবার সঙ্গে সবার পরিচয়। এমনিতে সবাই যথেস্ট ফ্রাঙ্ক। কোন ছবি ভালো হলে বাকিরা তাকে অনুপ্রাণিত করে।

ছোটখাট ভুলত্রুটিগুলোও ধরিয়ে দিচ্ছেন কেউ কেউ। তবুও বন্ধুত্বটা আরেকটু জমিয়ে তুলতে শুক্রবার গ্রুপ থেকে এরেঞ্জ করা হয় একটি টি পার্টি। যেখানে মেম্বার ও এডমিনরা সবাই পরিচিত হওয়ার পাশাপাশি গ্রুপ নিয়ে চলে ডিসকাশন। জানা হয় মেম্বারদের ভালোলাগা-মন্দলাগা।

প্রতিদিন গ্রুপে পোস্ট হওয়া ছবির মধ্য থেকে একটি ছবিকে সেদিনের সেরা ছবি হিসেবে নির্বাচন করা হয়। বাছাই করা বাকি ছবিগুলো নির্বাচন হয় ‘অ্যাডমিন চয়েজ’ ক্যাটাগরিতে। সে ছবিগুলো নিয়মিতই গ্রুপের পেজ এ আপলোড করা হয়। সপ্তাহের সেরা ছবিটি নির্বাচন করা হয় গ্রুপের কভার ফটো হিসেবে। প্রতি  শুক্রবার আয়োজন করা হয় প্রতিযোগীতার।

যেখানে একটি থিম বেধে দেয়া হয় আর সবাই সেই থিমের উপর ছবি দিয়ে থাকেন। সেদিন ছবি পোস্টের কোন লিমিট নেই। যে যত খুশি তত ছবি পোস্ট করতে পারবে। চাইলে নিজের পছন্দের থিমও দিতে পারবে নির্ধারনের জন্যে।

গ্রুপে একটি পোল করা আছে। সেখানে সবাই সবার পছন্দের থিমটি এড করে দেয়। পর্যায়ক্রমে থিমগুলো দেয়া হয়ে থাকে। অন্যান্য দিন সেরা ছবি হিসেবে একটি ছবি নির্বাচন হলেও শুক্রবার নির্বাচন করা হয় সেরা পাঁচটি ছবি। এবার এই উদ্যোগের সাথে আছে অলিগলি.কমও। সেই পাঁচটি ছবি এখন থেকে প্রতি শনিবার প্রকাশ করা হবে অলিগলি.কমে।

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।