রজার ‘একজনই’ ফেদেরার

বছর দুয়েক বা তারও কিছু আগে, আমি-আমরা ভাবছিলাম, ফেদেরার কেন এখনও খেলে যাচ্ছেন? আর কি আছে তার পাওয়ার! কিছু কি বাকি আছে দেওয়ার?

বরং কিছু কিছু রেকর্ডের ধারায় ছেদ পড়ছিল বলে খারাপ লাগছিল। ‘টানা এতগুলো গ্র্যান্ড স্ল্যাম পর সেমির আগে ফেদেরারের বিদায়’, ‘টানা অতগুলো গ্র্যান্ড স্ল্যাম পর কোয়ার্টার ফাইনালের আগে ফেদেরারের বিদায়’…। সেমিফাইনাল-ফাইনালে তার পরও উঠছিলেন। তবে তাকে কি আর চ্যাম্পিয়ন ছাড়া কিছু মানায়! আর র‌্যাংকিংয়ে অবনমন তো ছিলই। কখনোই সেটা খুব বাজে হয়নি এই সময়ে। তবে ফেদেরারের পাশে এক নম্বর ছাড়া কিছু কি মানায়!

আমরাই মানতে না পারলে ফেদেরার নিজে পারেন কী করে! মানেননি, তবে মানিয়ে নিয়েছেন বাস্তবতার সঙ্গে। লড়াই চালিয়ে গেছেন। টুকটাক ইনজুরির পাশাপাশি কঠিন ইনজুরি হয়েছে সম্ভবত দু দফায়। ২০১৩ সালে ব্যাক ইনজুরি। ২০১৬ সালে হাঁটুর সার্জারি। লম্বা সময় বাইরে। আমরা আবারও ভেবেছি, এবার তো অন্তত লোকটা থামতে পারেন!

সেই ফেদেরার হাঁটুর অস্ত্রোপচারের কয়েক মাস পর অস্ট্রেলিয়ান ওপেন জেতেন। উইম্বলডনের বাইরে প্রথমবার গ্র্যান্ড স্ল্যামে হারান নাদাল দৈত্যকে। এবার উইম্বলডন। যেখানকার সবুজ ঘাসের সঙ্গে তার সাদা পোশাকের সম্পর্কটা টেনিসের সবচেয়ে গভীর ভালোবাসার অধ্যায়ের একটি। সবচেয়ে আবেগের। সবচেয়ে রোমাঞ্চের। সবচেয়ে মায়ার।

মাঝের সময়টায় র‌্যাকেট বদলেছেন অনেকবার। পরে আবার ফিরে গেছেন আগেরটায়। মাথা ভর্তি চুলের রূপ বদলেছে কয়েকবার। এখন তো সামনের চুল কিছু হয়েছে উধাও। তবে বরাবরই অমলিন থেকে গেছে মুখের চেনা হাসি। আর অটুট রয়ে গেছে মনোবল। তাই ১৭ গ্র্যান্ড স্ল্যামে চার বছর আটকে থাকার পর, এই ২০১৭ সালে এসে, ৩৫ বছর পেরিয়ে ফেদেরার জিতে নেন দু-দুটি গ্র্যান্ড স্ল্যাম!

আমরা তাকে থামতে বলি, কারণ আমরা সাধারণ। চিন্তা-ভাবনাও আটপৌরে। মনে রাখি না, চ্যাম্পিয়নদের নিয়ে শেষ কথা বলে কিছু নেই। আর ফেদেরার তো চ্যাম্পিয়নদের চ্যাম্পিয়ন। সবার ভাবনার সীমানা যেখানে শেষ, সেখান থেকেই শুরু হয় তার নতুন দিগন্ত। তিনি গ্রেটদের গ্রেট। তার হাত ধরে বেড়ে যায় সামর্থ্য শব্দটির সামর্থ্য। দুনিয়ার তাবত বিশেষণকেও মনে হয় যথেষ্টর কম।

আরও একবার স্যালুট… রজার ‘একজনই’ ফেদেরার!

– ফেসবুক থেকে

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।