রং দে বাসন্তী’র নানা রং

এক যুগ আগে ভারতীয় ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে এমন একটা ছবি মুক্তি পেয়েছিল, যা শুধু বলিউডের নকশাই পাল্টে দেয়নি একই সাথে দেশপ্রেমের নতুন এক ধারণা জন্ম দিয়েছিল। ‘রং দে বাসন্তী’র সুবাদে দেশপ্রেমকে নতুন করে বুঝতে শিখেছিল ভারতের তরুণরা।

সেই বহুল আলোচিত সিনেমাটিরও অজানা কিছু অধ্যায় আছে। সেসব নিয়েই আমাদের এই আয়োজন।

প্রথম দফা সিনেমাটির নাম কিন্তু ‘রং দে বাসন্তী’ ছিল না। প্রথমে ‘আহুতি’ নামটা পছন্দ ছিল পরিচালক রাকেশ  ওম প্রকাশ মেহরার। সেখান থেকে ‘দ্য ইয়ং গানজ অব ইন্ডিয়া’য় এসে থিঁতু হয়।  যদিও, পরবর্তীতে গল্পে কিছু পরিবর্তন এনে নাম রাখা হয় ‘রং দে বাসন্তী’।

শুনলে অবাক হবেন যে আমির খান কিংবা আর মাধবন – কেউই তাদের চরিত্রের জন্য পরিচালকের প্রথম পছন্দ ছিলেন না। এর জন্য যথাক্রমে হৃতিক রোশন ও শাহরুখ খানকে চাচ্ছিলেন পরিচালক। এমনকি আমির খানকে প্রথমবার প্রস্তাব করা হলে তিনি মুখের ওপর ‘না’ বলে দেন। ৪০-এর ওপর বয়স নিয়েও ২৫ বছর বয়সী সদ্য বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাশ করা শিক্ষার্থীর চরিত্রে কাজ করতে মন সায় দিচ্ছিল না আমিরের। যদিও, পরে তিনি টানা দু’ঘণ্টা ধরে ছবিটির গল্প শুনে মুগ্ধ হন, তারপরও তিনি কাজ করতে আগ্রহী হন। এমনকি সিনেমাটিতে কাজ করার জন্য ১০ কেজি মেদ ঝরিয়েছিলেন তিনি।

ওই সময়ে গুজব ছিল, অর্জুন রামপাল ও অর্জন বাজওয়া থাকবেন সিনেমায়। যদিও পরে তাঁদের জায়গায় কাজ করেন শারমান জোশি ও সিদ্ধার্থ। সিনেমাটির আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসার আগে কেউই কুনাল কাপুর ও অতুল কুলকার্নির উপস্থিতির কথা জানতো না।

মুক্তির আগেই সিনেমাটি নিয়ে যথেষ্ট আপত্তির সৃষ্টি হয়েছিল। ভারতীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রনালয় ‘মিগ-২১’ কেলেঙ্কারির ইস্যুতে বেঁকে বসে। আর অ্যানিমেল ওয়েলফেয়ার বোর্ড নিষিদ্ধ ঘোড়দৌড় প্রতিযোগীতা পর্দায় নিয়ে আসার জন্য সিনেমাটির মুক্তিতে বাঁধা দেয়।

এমনকি বেঁকে বসেছিল খোদ সেন্সর বোর্ডও। তখন সেন্সর বোর্ডের প্রধান ছিলেন শর্মিলা ঠাকুর। তার কন্যা সোহা আলী খান ছিলেন সিনেমাটির গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে। তা সত্ত্বেও, সেন্সর বোর্ড ভারতের প্রতিরক্ষ মন্ত্রীর হত্যার দৃশ্য নিয়ে তুলেছিল আপত্তি।

তখন এগিয়ে আসেন খোদ আমির খান। তখনকার প্রতিরক্ষা মন্ত্রী ও বর্তমানে রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জীর জন্য বিশেষ স্ক্রিনিংয়ের ব্যবস্থা করেছিলেন আমির। প্রণব মুখার্জী সিনেমাটি দেখে কোনো আপত্তি করেননি। ব্যস, সেন্সর বোর্ডও তাদের এমবার্গো উঠিয়ে নেয়।

যাই হোক, সিনেমাটিতে ওই প্রতিরক্ষা মন্ত্রীকে হত্যার দৃশ্যটার কথা মনে আছে তো? ওই দৃশ্যের আইডিয়া কার ছিল জানেন? – খোদ আমির খানের!

– রাকেশ ওম প্রকাশ মেহরার লেখা ‘রং দে বাসন্তী: দ্য শুটিং স্ক্রিপ্ট’ অবলম্বনে

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।