মিরপুরের আউটফিল্ড ও ফেসবুক বিপ্লব

মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের আউটফিল্ডকে ‘বাজে’ বলে মন্তব্য করেছে আইসিসি। আমার মনে হয়, বেশি খারাপ বলে নাই।

মিরপুরের আউটফিল্ড ভরাট করা হয়েছে বালি দিয়ে। ঘাসও খুব বেশি গজায়নি। এ ধরনের আউটফিল্ডে ডাইভ দিলে খেলোয়াড়দের ইনজুরিতে পড়ার শঙ্কা তুলনামূলকভাবে বেশি।

প্রথম টেস্টে অস্ট্রেলিয়া এই মাঠে ২০ রানে হারে। ম্যাচ রেফারির দায়িত্ব পালন করেছিলেন জেফ ক্রো। আইসিসির পিচ এন্ড আউটফিল্ড পর্যবেক্ষণ নীতিমালার তিন নম্বর ধারা অনুসারে আইসিসির কাছে প্রতিবেদন জমা দিয়েছেন জেফ ক্রো।

প্রতিবেদনে তিনি মিরপুরের আউটফিল্ড নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন। স্টেডিয়ামের আউটফিল্ড মানসম্মত ছিল না বলে মনে করছেন এই ম্যাচ রেফারি। বৃহস্পতিবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জেফ ক্রো’র অভিযোগের কথা জানিয়েছে আইসিসি।

ক্রো-এর প্রতিবেদনের কারণে কাঠগড়ায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। আইসিসি জানিয়েছে ইতিমধ্যেই ক্রু’র প্রতিবেদন পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে বিসিবির কাছে। বিসিবিকে ১৪ দিন সময় বেঁধে দিয়েছে আইসিসি।

এই ১৪ দিনের মধ্যেই অভিযোগের জবাব দিতে হবে বিসিবিকে। বিসিবির জবাব খতিয়ে দেখবেন আইসিসির জেনারেল ম্যানেজার জিওফ অ্যালারডাইস ও আইসিসির ম্যাচ রেফারি এলিট প্যানেলের সদস্য রঞ্জন মধুগালে। জবাবে ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি সন্তুষ্ট না হলে বড় শাস্তির মুখে পড়তে পারে বিসিবি। এমনকি সর্বোচ্চ ১৫ হাজার ডলার পর্যন্ত জরিমানা হতে পারে বিসিবির। যদিও, বিসিবি অবশ্য বিচলিত হচ্ছে না।

মিরপুরের আউটফিল্ড সাধারণত সবুজ গালিচার মতো থাকে। কিন্তু সর্বশেষ সংস্কারের পর সবুজ গালিচার জায়গায় দেখা গেছে মরুভূমির বিষাদের রঙ। প্রথম দেখায় বিশ্বাসই হতে চায়নি যে, এই আউটফিল্ড মিরপুরের। তবে সময়ের সঙ্গে সঙ্গে হয়তো আউটফিল্ডের অবস্থা বদলাতে থাকবে।

যা হোক, বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া সিরিজের ম্যাচ রেফারি জেফ ক্রো মিরপুরের আউটফিল্ডকে ‘বাজে’ বলে তেমন একটা বাজে কাজ করেনি বলেই মনে করি।

বিসিবিকে এরই মধ্যে নিজেদের মন্তব্য জানিয়েছে আইসিসি। এ বিষয়ে নিজেদের ব্যাখ্যা জানাতে ১৪ দিন সময় পাবে বিসিবি। বিসিবির ব্যাখ্যা হাতে পাওয়ার পর এ বিষয়ে আইসিসি তাদের পরবর্তী সিদ্ধান্ত জানাবে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় বিপ্লবী ভাইদের একটা অংশে থেকে দাবী উঠেছে যে, ঢাকায় অস্ট্রেলিয়াকে বাংলাদেশ হারিয়েছে বলেই আইসিসি নতুন চক্রান্ত শুরু করছে। সব কিছুতে চক্রান্ত খোঁজার পুরনো অভ্যাস আমাদের গেল না!

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।