আমাদের মাশরাফি ও কীর্তিমান পাঁচ অধিনায়ক

ইতিহাসের দুয়ারে দাঁড়িয়ে আছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। আর মাত্র একটা ওয়ানডে জিতে ফেললেই বাংলাদেশের হয়ে সবচেয়ে বেশি ওয়ানডে জয়ী অধিনায়ক বনে যাবেন নড়াইল এক্সপ্রেস। ছাড়িয়ে যাবেন সাবেক অধিনায়ক হাবিবুল বাশার সুমনকে।

বাশার ৬৯ ওয়ানডেতে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিয়ে ২৯টি ম্যাচে দলকে জিতিয়েছেন। অপরদিকে, ৫২টি ওয়ানডেতে নেতৃত্ব দিয়ে  ২৯টি জয়ের স্বাদ পেয়েছেন মাশরাফি। বাশারের নেতৃত্বে ৪০টি ম্যাচ হেরেছে বাংলাদেশ। তবে মাশরাফির নেতৃত্বে ২১টি ম্যাচ হারে বাংলাদেশ।

বাশার-মাশরাফির পর বাংলাদেশকে তৃতীয় সর্বোচ্চ ২৩টি ওয়ানডেতে জয়ের স্বাদ দিয়েছেন ৫০টি ম্যাচে নেতৃত্ব দেয়া সাকিব আল হাসান। আমাদের এই আয়োজনটাও অধিনায়কদের নিয়েই, তবে সেটা গোটা ক্রিকেট বিশ্বে। অধিনায়ক হিসেবে দলকে যারা সবচেয়ে বেশি ম্যাচ জিতিয়েছেন, চলুন তাদের ব্যাপারে জেনে ফেলা যাক।

স্টিফেন ফ্লেমিং (নিউজিল্যান্ড) ১৯৯৭-২০০৭

ব্ল্যাকক্যাপদের তিনি ২১৮ টি আন্তর্জাতিক ওয়ানডেতে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। এর মধ্যে জিতেছেন ৯৮টিতে। ঠাণ্ডা মেজাজের ফ্লেমিংকে ১৯৯৭ সালে যখন নির্বাচকরা লি গারমনের স্থলাভিষিক্ত করান তখন বয়স মোটে ২৩। এরপরের ১০ বছরে তিনটি বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে পৌঁছায় নিউজ্যিান্ড। সাদামাটা দল থেকে নিউজিল্যান্ডকে সমীহ করার মত দলে পরিণত করেছিলেন তিনি।

হ্যান্সি ক্রনিয়ে (দক্ষিণ আফ্রিকা) ১৯৯৪-২০০০

দক্ষিণ আফ্রিকানদের জন্য ক্রনিয়ে একাধারে গর্বের নাম, লজ্জার নাম, আক্ষেপের নাম, ট্র্যাজেডির নাম, কান্নার নাস। কেপলার ওয়েসেলসের ডেপুটি ছিলেন, সেখান থেকে পূর্নাঙ্গ অধিনায়ক। ৫৩ টি টেস্ট ও ১৩৮ টি ওয়ানডে নেতৃত্ব দিয়েছেন। ৯৯ টি ওয়ানডে জিতে তিনি দক্ষিণ আফ্রিকানদের হয়ে সবেচেয় বেশি ওয়ানডে জয়ের রেকর্ডটা ধরে রেখেছেন আজো। যদিও, এরপরও ম্যাচ ফিক্সিং কিংবা বিমান দুর্ঘটনায় মারা যাওয়া – এসব কারণেই লোকে তাকে বেশি মনে রেখেছে।

অ্যালান বোর্ডার (অস্ট্রেলিয়া) ১৯৮৫-১৯৯৪

নব্বই দশকের শেষভাবে অস্ট্রেলিয়া যে বিশ্বজয়ী এক প্রতাপশালী দলে পরিণত হয়, তার সূচনা করে দিয়েছিলেন অ্যালান বোর্ডার। ১৯৮৭ ও ১৯৯২ – দু’টি বিশ্বকাপে তিনি দলকে নেতৃত্ব দেন, অস্ট্রেলিয়াকে এনে দিয়েছেন নিজেদের প্রথম বিশ্বকাপ। ১৭৮ টি ওয়ানডেতে দলকে নেতৃত্ব দিয়ে জিতিয়েছেন ১০৭ টিতে। অস্ট্রেলিয়ানদের তার চেয়ে বেশি সংখ্যক ওয়ানডেতে নেতৃত্ব দিয়েছেন কেবল রিকি পন্টিং (২৩০)।

মহেন্দ্র সিং ধোনি (ভারত) ২০০৭-২০১৬

ক্রিকেটের ইতিহাসে মহেন্দ্র সিং ধোনিই একমাত্র অধিনায়ক যিনি আইসিসির বড় তিনটি আসরের সবগুলোই জিতেছেন । ২০১৬ সালে সবরকম নেতৃত্ব থেকে সরে দাঁড়ানো ধোনি ভারতকে ২০০৭ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, ২০১১ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপ ও ২০১৩ সালের আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জিতিয়েছেন। ১৯৯ টি ওয়ানডেতে দলকে নেতৃত্ব দেওয়া ধোনি জিতেছেন ১১০টিতে।

রিকি পন্টিং (অস্ট্রেলিয়া) ২০০২-২০১২

১৯৯৫ সালে অভিষেকের পর ২০০২ সালে নেতৃত্ব পান রিকি পন্টিং। অস্ট্রেলিয়াকে নয়টি আইসিসি টুর্নামেন্টে নেতৃত্ব দেন তিনি। এর মধ্যে আছে তিনটি বিশ্বকাপ, চারটি আইসিসি ট্রফি ও দু’টি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। খেলোয়াড় হিসেবে একটি ও অধিনায়ক হিসেবে দু’টি – মোট তিনটি বিশ্বকাপ জয়ী দলের সদস্য তিনি। ২৩০ টি ওয়ানডেতে এর আগে কোনো অধিনায়কই কোনো দলকে নেতৃত্ব দেননি। অধিনায়ক হিসেবে তার ১৬৫ টি ওয়ানডে জয়ের রেকর্ডও আজো টিকে আছে।

– স্পোর্টসকিডা অবলম্বনে

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।