মালায়ালাম সিনেমা কেন বাকিদের চেয়ে আলাদা?

একটা সময় ছিল উপমহাদেশের সেরা সিনেমাগুলো নির্মিত হত বাংলা ভাষায়। কালক্রমে সেই জায়গাটা দখল করেছিল বলিউড। আর যতদিন যাচ্ছে জায়গাটাতে নিজেদের অবস্থান সুপ্রতিষ্ঠিত করে চলেছে মালায়ালাম সিনেমা।

সত্যজিৎ, ঋত্বিক ঘটক, উত্তম, সুচিত্রা এদের রাজত্ব ছিলো এক সময়। আজ বাংলা সিনেমার সেই সুবাতাস মালায়ালাম ইন্ডাস্ট্রিতে বইছে। ভারতবর্ষে সবথেকে নতুন ইন্ডাস্ট্রি হওয়ার পরও তারাই  কিন্তু এখন সবার থেকে এগিয়ে।

কোন বিবেচনায় মালায়ালামকে এগিয়ে রাখা হচ্ছে? এই সিনেমাগুলো দেখলেই বুঝে ফেলবেন। মালায়ালাম ইন্ডাস্ট্রির এই সিনেমাগুলি লুফে নিয়েছে আমাদের দেশের দর্শকমহল এমনকি গোটা ভারতবর্ষ।

চার্লি (২০১৫)

এই সিনেমাটি কোন সিনেমা নয়, এটা একটা আধুনিক রূপকথা। হিমুর মতো একজন রূপকথার রাজপুত্রের গল্প। আমাদের মতো সাধারণ দর্শকরূপি একজন নায়িকা আছে সিনেমাটিতে, যার সাথে সাথে আমরাও এই গল্পের নায়ককে খুঁজতে থাকি সিনেমাটির শুরু থেকে।

ব্যাঙ্গালোর’স ডেয়জ (২০১৪)

তিনজন কাজিনের সুখ-দুঃখের গল্প নিয়েই সিনেমাটির কাহিনী এগিয়েছে। সিনেমা দেখার সময় মনে হবে এ’যেন আমাদেরই যাপিত জীবনের গল্প।

উস্তাদ হোটেল (২০১২)

একজন যুবকের নিয়ম ভাঙার গল্প। দাদা-নাতী দুই জেনারেশনের এক অসাধারণ ফ্রেম যেন এই একটা সিনেমা। সাথে আছে নজরকাড়া খাবারের আর রান্নার গল্প।

নীলাকাশাম, পাচাকাডাল, চুভান্না ভূমি (২০১৩)

প্রিয়তমাকে আনতে পথের পর পথ অতিক্রম করার গল্প এটি। সাথে একজন বন্ধু আর একটা বাইক। পথে দেখা হয় বিভিন্ন জাতি, বিভিন্ন ভাষার মানুষের সাথে। জাতিতে জাতিতে সংঘাত আর তাদের দৃষ্টিতে রাজনীতি, মনে হবে এটা আমাদের মতো সাধারণদের গল্প যেন। ব্যাকগ্রাউন্ডে বাংলা গান, সুর আপনার ভেতর অন্যরকম ভালোলাগার অনুভূতি তৈরি করবে।

প্রেমাম (২০১৫)

একজন মানুষের জীবনের তিনটি অধ্যায়ের গল্পের অসাধারণ সৃষ্টি হচ্ছে এই সিনেমাটি। একজন দুরন্ত কিশোর থেকে প্রাণচঞ্চল যুবক তারপর সময়ের সাথে সাথে একজন প্রাপ্তবয়স্ক স্থির পুরুষে পরিণত হওয়ার গল্প। সিনেমাটি একটা রূপক রূপকথা যেন… অভিনেতার তিন সময়ের অসাধারণ অভিনয় বিস্মিত করবে দর্শকদের।

জানিয়ে রাখা ভাল, মালায়ালাম সিনেমার সাধারণত হিন্দি ডাব হয়না। ব্যতিক্রম আছে, তবে তার সংখ্যা খুবই নগন্য। এই সিনেমাগুলোর ইংরেজি সাবটাইটেল পাওয়া যায়। এছাড়া বাংলাদেশের কিছু সিনেমাপাগল উদ্যোমী তরুণ বাংলা সাবটাইটেলও বানান। সেগুলো দিয়ে মালায়ালাম ভাষা বুঝতে কোনো অসুবিধা হওয়ার কথা নয়।

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।