বায়ুদূষণ কমাবে কংক্রিট

বায়ু দূষণ কমাতে পারে কংক্রিটের দালান বা অবকাঠামো! কথাটা শুনতে কিছুটা অবাস্তব লাগলেও, এমনটাই দাবি করছেন এক দল বৈজ্ঞানিক, যাদের মধ্যে রয়েছেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত একজনও। বৈজ্ঞানিক দলটির মতে, কংক্রিট হতে পারে পরিবেশবান্ধব, কেননা এটা শোষণ করে পরিবেশ দূষণের অন্যতম উপাদান সালফার ডাই অক্সাইড।

গবেষকরা মনে করছেন, যে কংক্রিটকে এক সময় মনে করা হতো পরিবেশ দূষণের পেছনে অন্যতম প্রধান কারণ হিসেবে, সেটাকে যদি এখন পরিবেশ রক্ষার কাজে ব্যবহার করা যায়, তা নগর পরিকল্পনা ও আবর্জনা পুনর্ব্যবহারের ক্ষেত্রে এক নতুন দিগন্ত উন্মোচন করবে।

তারা আরও মনে করেন, এটা হতে পারে পুরনো কংক্রিট নতুন করে ব্যবহারের মাধ্যমে পরিবেশ দূষণ রোধের ক্ষেত্রে একটা উল্লেখযোগ্য ও কার্যকরী ধাপ।

যুক্তরাষ্ট্রের স্টোনি ব্রুক ইউনিভার্সিটির সহকারী অধ্যাপক অ্যালেক্স অরলভ বলেন, ‘যদিও কংক্রিট প্রস্তুত করতে গিয়ে পরিবেশের ক্ষতি করা হয়, তারপরও শহর এলাকায় কংক্রিটের দালানকোঠাকে ব্যবহার করা সম্ভব এক প্রকারের স্পঞ্জ (তরলপদার্থ শোষক দ্রব্য) হিসেবে, যা কিনা আগের চেয়েও বেশি পরিমাণে সালফার ডাই অক্সাইড শুষে নিতে সক্ষম হবে।’

একটু ব্যাখ্যা দিয়ে তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের এই নতুন আবিষ্কার খুলে দিচ্ছে সম্ভাবনার এক নতুন দুয়ার, যার ফলে ভেঙে ফেলা দালানকোঠা থেকে আগত অপ্রয়োজনীয় কংক্রিট এখন থেকে আর পরিবেশের ক্ষতি করবে না, বরং দূষিতকারী পদার্থগুলোকে শোষণ করে পরিবেশকে একটা সহনীয় মাত্রায় নিয়ে আসবে।’

ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন (ডব্লিউ.এইচ.ও) এর এক প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, বিশ্বের প্রায় ৭০ লক্ষ মানুষের অকালমৃত্যুর সাথে সরাসরি যোগাযোগ রয়েছে নিম্নমানের বায়ু ও মাত্রাতিরিক্ত পরিবেশ দূষণ।

বৈশ্বিকভাবে বায়ু দুষণের ক্ষেত্রে সালফার ডাই অক্সাইড অন্যতম প্রধান উপাদান। পাওয়ার প্ল্যান্ট বা বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলো বাতাসে সবচেয়ে বেশি সালফার ডাই অক্সাইড যোগ করে। এছাড়া ইটের ভাঁটাও বাতাসে সবধরণের সালফার ডাই অক্সাইড জাতীয় শিল্পবর্জ্যের মধ্যে ২০% যুক্ত করার পেছনে দায়ী।

অন্যদিকে কংক্রিট হলো পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত ও তুলনামূলক কমদামি উপাদান। স্টোনি ব্রুক ইউনিভার্সিটির গবেষক গিরিশ রামকৃষ্ণ তার গবেষণার কাজে সিমেন্ট ও নানাজাতীয় সিমেন্ট-ভিত্তিক দালান নির্মানের উপাদান নিয়ে পরীক্ষানিরীক্ষা চালিয়েছেন। তারা তাদের গবেষণার কাজে diffuse reflectance infrared fourier transform spectroscopy (DRIFTS) ও X-ray absorption near edge spectroscopy (XANES) ব্যবহার করে দেখেছেন, সিমেন্ট ও সিমেন্ট-ভিত্তিক উপাদানসমূহ কতটা সালফার ডাই অক্সাইড শোষণে সক্ষম।

তবে গবেষকেরা এটাও বলেছেন যে কংক্রিটের দূষিতকারী পদার্থ শোষণের ক্ষমতা সময়ের সাথে সাথে হ্রাস পেতে থাকে। উপাদানের বয়স যত বাড়ে, তার শোষণক্ষমতাও একই সমান্তরালে কমে।

তবে কংক্রিট নিষ্পেষন বা ভেঙে ফেলার মাধ্যমে নতুন ধরণের কাঠামো নির্মাণের সুযোগ সৃষ্টি হয়, এবং এর শোষণক্ষমতাও পুনরায় ফিরে আসে। এই গবেষণাপত্রটি প্রথম প্রকাশিত হয় ‘জার্নাল অব কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং’-এ।

– লাইভ মিন্ট অবলম্বনে

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।