অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বাংলাদেশের টেস্ট একাদশ: বাদ পড়ছেন কারা?

টেস্ট স্কোয়াড গঠনের জন্য বাংলাদেশের নির্বাচকদের সবসময় এমন জটিলতা পোহাতে হয় না, যতটা হচ্ছে এবার অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দুই টেস্টের সিরিজের জন্য। একাদশ কেমন হবে সেটা নিয়েও আছে মধুর সমস্যা।

কাকে জায়গা দেবেন, আর কাকে বাইরে রাখবেন – সেসব ভেবে কূল পাচ্ছেন না নির্বাচকরা। জটিলতার শুরু একেবারে ওপেনিং পজিশন থেকেই। সেখানে তামিম ইকবালকে ‘অটোমেটিক’ চয়েস ধরলে বাকি থাকেন সৌম্য সরকার ও ইমরুল কায়েস।

তামিমের সঙ্গী হওয়ার লড়াইয়ে ইমরুল-সৌম্য দু’জনেরই আশাবাদী হওয়ার সুযোগ আছে। ক্যারিয়ারে বরাবরই ওপেনিং পজিশনে খেলে আসা ইমরুল কায়েসকে গত শ্রীলঙ্কা সফরে নামিয়ে দেওয়া হয় তিন নম্বরে। সেখানে যথাক্রমে ৩৪ ও ০ রানের স্কোরই প্রমাণ করে মানিয়ে নিতে পারছেন না তিনি। অন্যদিকে শ্রীলঙ্কা সফরে ওপেনিংয়ে ধারাবাহিক রান পাওয়া সৌম্যর প্রতি খোদ কোচ চান্দিকা হাতুরুসিংহেরও পক্ষপাতিত্ব আছে।

আর তিন নম্বরের জন্য মুমিনুল হকের অভিজ্ঞতাকেও উপেক্ষা করা যাচ্ছে না। কমপক্ষে ২০ টেস্ট খেলা বাংলাদেশিদের মধ্যে তার ব্যাটিং গড়ই সবচেয়ে বেশি। আর সর্বশেষ চট্টগ্রামের প্রস্তুতি ম্যাচে ৭৩ রানের ইনিংস দিয়ে তিনি নিজের ছন্দে থাকারো প্রমাণ দিয়েছেন।

চার ও পাঁচ নম্বরে মুশফিকুর রহিম ও সাকিব আল হাসানের জায়গা নিশ্চিত। তবে, মুশফিকের ভূমিকা নিয়ে এখনো সূরাহায় পৌঁছায়নি টিম ম্যানেজমেন্ট।

চাপ কমাতে শ্রীলঙ্কা সফরের প্রথম টেস্টে উইকেটের পেছনে ছিলেন লিটন দাস। তবে, লিটনের ইনজুরিতে দ্বিতীয় টেস্টে ফের দায়িত্ব আসে মুশফিকের ওপর। সেখানে চারটি ক্যাচ-স্ট্যাম্পিং আর ৫২ ও ২২ রানের দুই ইনিংস খেলে অধিনায়ক ঐতিহাসিক জয় নিশ্চিত করেন।

আর বাড়তি উইকেটরক্ষক খেলানোর অর্থ হল সাব্বির রহমান কিংবা মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত – এই দু’জনের একজনকে বাদ দেওয়া। সেটা কোনো ভাবেই চাচ্ছেন না নির্বাচকরা।

ব্যাটিংয়ে নিচের দিকে থাকছেন স্পিনিং অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজ। তার ব্যাটিং সামর্থ্যের কথা মাথায় রেখে লিটন কিংবা অভিজ্ঞ মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের একাদশে ঢুকে পড়াটা এখন খুব কঠিন। সাব্বিরকে বসিয়ে রিয়াদকে খেলানোর ব্যাপারে অনেকে রায় দিলেও তাতে একমত না একটি অংশ।

আর অস্ট্রেলিয়াকে হারানোর জন্য বোলিং ডিপার্টমেন্টটাও অনেক শক্তিশালী হওয়া জরুরী। সাকিব-মিরাজের সাথে তৃতীয় স্পিনার হিসেবে তাইজুল ইসলাম খেললে দুই স্পিনার নেওয়ার সুযোগ থাকছে। সেখানে মুস্তাফিজের জায়গাটা অবধারিত। সাথে একটি জায়গার জন্য লড়বেন তাসকিন আহমেদ, শফিউল ইসলাম, রুবেল হোসেন, কামরুল ইসলাম রাব্বি ও শুভাশীষ রায়। এমনকি এক পেসার দলে রেখে বাড়তি ব্যাটসম্যান হিসেবে একাদশে ঢুকে যেতে পারেন রিয়াদ, লিটন কিংবা ইমরুলও!

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।