বলিউড, বিতর্ক ও আত্মহত্যা

পর্দায় আমরা বলিউড তারকাদের হাসিখুশি ও ‍দুশ্চিন্তামুক্ত দেখতেই অভ্যস্ত। কিন্তু ‘রিল লাইফ’ ও ‘রিয়েল লাইফ’-এর মাঝে পার্থক্য যে আকাশ-পাতাল। তাদের ব্যক্তিগত জীবনটা একেবারেই আলাদা, সেখানেও তারা ঠিক সাধারণ মানুষের মতই। সেখানেও কষ্ট আছে, দু:খ আছে, না পাওয়া ক্ষোভ আছে, আছে দুশ্চিন্তা। অনেক বলিউড তারকাই তাই জীবনকে দুর্বিসহ মনে করে বেছে নিয়েছেন আত্মহত্যার পথ।

দিব্যা ভারতী

মাত্র ১৯ বছর বয়সে ভারসোভার তুলসি অ্যাপার্টমেন্টের পাঁচ তলা ভবন থেকে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেন এই বলিউড ডিভা। দিনটা ছিল ১৯৯৩ সালের পাঁচ এপ্রিল। কিছু ভারতীয় গণমাধ্যম অবশ্য একে হত্যা বলে দাবী করে, আন্ডারওয়ার্ল্ডের ভূমিকা থাকার সন্দেহও করা হয়। যদিও, পুলিশ পাঁচ বছর তদন্ত করে কিছু খুঁজে পায়নি।

গুরু দত্ত

তিনিই হলেন বলিউড ইন্ড্রাস্টিতে আত্মহত্যা করা প্রথম তারকা। সেটা ১৯৬৪ সালের ১০ অক্টোবরের ঘটনা। তিনি ছিলেন চলচ্চিত্র পরিচালক, প্রযোজক ও অভিনেতা। অভিনেত্রী ওয়াহিদা রেহমানের সাথে তার সম্পর্ক ছিল, সেটা নিয়ে স্ত্রীর সাথে বনিবনা হত না। মুম্বাইয়ের পেড্ডার রোডের অ্যাপার্টমেন্টে তার মৃতদেহ পাওয়া যায়। মদ্যপানের পর এক গাদা ঘুমের ওষুধ খেয়েছিলেন তিনি।

জিয়া খান

ব্রিটিশ-আমেরিকান বংশদ্ভুত এই অভিনেত্রী অমিতাম বচ্চনের মত মেগাস্টারের সাথে রাম গোপাল ভার্মার ‘নি:শব্দ’ সিনেমা দিয়ে বলিউডে আসেন। ‘গজনী’ ও ‘হাউসফুল’ সিনেমায় প্রশংসিত হন। ২০১৩ সালের তিন জুন মুম্বাইয়ের জুহুতে নিজের ফ্ল্যাটে তার ঝুলন্ত লাশ পাওয়া যায়। চলে যাওয়ার আগে ছয় পৃষ্ঠার এক ‘সুইসাইড নোট’ লিখে যান তিনি। সেখানে মৃত্যুর জন্য আদিত্য পাঞ্চোলির ছেলে সুরাজ পাঞ্চোলির সাথে সম্পর্ককে দায়ী করে যান।

পারভিন ববি

গ্ল্যামারাস এই অভিনেত্রী ২০০৫ সালের ২২ জুন মাত্রাতিরিক্ত ডিপ্রেশনে ভুগে আত্মহত্যা করেন। মৃত্যুর ৭২ ঘণ্টা পর তার লাশ উদ্ধার করা হয়। তিনদিন ধরে পত্রিকা ও দুধ না নেওয়ায় প্রতিবেশিরা সন্দেহ করেন, তারাই পুলিশকে খবর দেন। ডিপ্রেশনের সাথে সাথে ডায়বেটিস ছিল ববির। মাত্রাতিরিক্ত মদ্যপ অবস্থায় অনেকগুলো ঘুমের ওষুধ খেয়ে শেষবারের মত ঘুমিয়ে পড়েন তিনি।

সিল্ক স্মিতা

দক্ষিণের সিনেমায় কাজ করে বিখ্যাত হন সিল্ক স্মিতা। চেন্নাইয়ের অ্যাপার্টমেন্টে ১৯৯৬ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর তিনি আত্মহত্যা করেন। কেন করেছিলেন? প্রেমে ব্যর্থতা, আর্থিক ভাবে দেউলিয়া হয়ে যাওয়া কিংবা অতিরিক্ত অ্যালকোহলে আসক্তি – অনেকগুলো কারণ সামনে চলে আসে।

– বলিউডবাবল অবলম্বনে

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।