একজন তাহসান ও ব্ল্যাকের জন্য হাহাকার

ভালোবাসা দিবস, ২০০৫ সাল। নন্দিত অভিনেত্রী ও নির্মাতা আফসানা মিমির নাটক ‘অফবিট’। নাটকে এক তরুণ সারাক্ষণ সাইকেলে ঘুরে বেড়ায়, বন্ধুদের সাথে ব্যান্ড দল গড়ার স্বপ্ন দেখে। এমন সময় এলাকায় আসে নতুন একটি মেয়ে, প্রথম দেখাতেই ছেলেটি ভালোবেসে ফেলে তাকে, যেদিন ভালোবাসার কথা জানাতে যাবে, সেদিন অন্য এক রহস্য উদঘাটন হয়।

তাঁর অব্যক্ত ভালোবাসা আর প্রকাশ পায় না। প্রাণোচ্ছল সেই তরুণের চরিত্রে অভিষেক ঘটে এক নবীন গায়কের, যিনি ইতোমধ্যেই ‘কথোপকথন’ এর মত সাড়া জাগানো অ্যালব্যাম উপহার দিয়েছেন। তাঁর রয়েছে বহু গুণ। সুরের জগতে তিনি গান সৃষ্টি করেন, কন্ঠে রয়েছে মাদকতা,আবার অভিনয়েও তিনি সপ্রতিভ। কখনো আবার তিনি মডেল কিংবা উপস্থাপক। তিনি বর্তমান সময়ের অত্যন্ত জনপ্রিয় তারকা তাহসান রহমান খান।

যদিও, খুব বেশিদিন আগের কথা নয়, তাহসান মানেই লোকে ব্ল্যাকের তাহসানকে চিনতো। ব্ল্যাক বাংলাদেশের ব্যান্ড সঙ্গীতের ভূবনে নতুন এক যুগের সূচনা করেছিল। অলটারনেটিভ রক মিউজিক দিয়ে তারা তরুণ-যুবাদের মন জয় করেছিল খুব সহজেই।

২০০২ সালে তাদের প্রথম অ্যালবাম ‘আমার পৃথিবী’র পরই বোঝা হয়ে যায়, বাংলাদেশের ব্যান্ড জগতে নতুন কিছু একটা ঘঠতে চলেছে। এরই ধারাবাহীকতায় আসে ‘উৎসবের পর’ নামের অ্যালবামটি। তখন ছেলেপুলেরা একজন জন কবির, তাহসান কিংবা টনি হতে চাইতো।

ব্ল্যাকের আরো বড় হওয়ার কথা ছিল। হতে পারেনি, একটা সড়ক দুর্ঘটনা ব্যান্ডের মনোবল ভেঙে দিয়েছিল অনেকটাই। ‘আবার’ অ্যালবাম রেকর্ডিং চলাকালীন সময়ে সড়ক দুর্ঘটনায় ব্ল্যাকের সাউন্ড ইঞ্জিনিয়ার ইমরান আহমেদ চৌধুরী মুবিন মারা যায় এবং বেজ গিটারিষ্ট মিরাজ ও ড্রামার টনি ভিন্সেন্ট আহত হয়। টনি ফিরলেও মিরাজের আর ব্যান্ডে ফেরা হয়নি।

তাহসান অবশ্য এরও আগে ব্যান্ড ছেড়ে দিয়েছিলেন। ব্ল্যাকে থাকা অবস্থাতেই তিনি মন দিয়েছিলেন একক অ্যালবামে। ২০০৪ সালে বের করেন প্রথম অ্যালব্যাম ‘কথোপকথন’, প্রথম অ্যালব্যামের সাফল্যের পর প্রকাশিত হয় ‘ক্রীতদাসের হাসি’, ‘ইচ্ছে ‘ ও ‘নেই’। নিজের গানবাজনা নিয়ে ব্যস্ততার জন্যই নাকি ব্যান্ড ছেড়ে দিয়েছিলেন তাহসান। অনেকে অবশ্য ভেতরে অন্য অনেক কিছুরও গন্ধ পান।

কেউ কেউ বলেন, বন্ধুত্বে ফাঁটল ধরেছিল। ব্যান্ড ছেড়ে দেওয়ার পরও অনেকদিন একই মঞ্চে গান করেননি তাহসান ও জন। কারণ, যাই হোক – পরবর্তীতে ভোকালিস্ট জন নিজেও ব্যান্ড ছেড়ে দিয়েছিলেন। তিনিও এখন নিজের ব্যক্তিগত গানবাজনা ও নাটকের কাজ নিয়েই ব্যস্ত।

আবার তাহসানের প্রসঙ্গে ফিরি। বেশ কয়েক বছর বিরতি দিয়ে সম্প্রতি ‘প্রত্যাবর্তন’ অ্যালব্যাম দিয়ে আবার ফিরে আসেন। সম্প্রতি সময়ে মুক্তি পেয়েছে উদ্দেশ্য নেই ও মন কারিগর অ্যলব্যাম। ব্ল্যাক দল থেকে বের হয়েছিল আমার পৃথিবী ও উৎসবের পর এলব্যাম। এছাড়া অনেক মিক্সড এলব্যামেও গান করেন।

শুধু নিজের গানের নয়, অন্য কন্ঠশিল্পীদের অ্যালবামেও সুরারোপ করেছে, এর মধ্যে মিনারের ‘ডানপিটে’ অন্যতম। চলচ্চিত্রেও প্লেব্যাক করেছেন। তাঁর জনপ্রিয় গানের মধ্যে আলো, প্রেমাতাল, অগোচরে, কোথায় আছো, মেঘের পরে, কেন হঠাৎ তুমি এলে, উদ্দেশ্য নেই, ছুঁয়ে দিলে মন, আমার গল্পে তুমি, ছিলে আমার, ছিপ নৌকো অন্যতম। ব্ল্যাক দল থেকে বেরিয়ে এসে ‘তাহসান এন্ড সুফিজ’ নামে আলাদা একটা ব্যান্ড দল গঠন করেন। যদিও, পরবর্তীতে তাদের কোনো খবর পাওয়া যায়নি। কে জানে, হয়তো বা সেই আগের ‘ম্যাজিক’টাই ছিল না!

গানের বাইরে আরেক জগতে রয়েছে তাঁর সফল পদচারণা। এই জগতে এসে তিনি আরো জনপ্রিয় হয়েছেন। বিগত কয়েক বছর ধরে ‘তাহসান’ একটি জনপ্রিয় নাম। প্রথম নাটক ‘অফবিট’ এরপর কাছের মানুষ ধারাবাহিক নাটকে অভিনয় করেন। কয়েক বছর বিরতি দিয়ে অভিনয় করেন ‘মধুরেণ সমাপয়েৎ’ নাটকে।

তারপর আবার বিশাল বিরতি, ২০১২ সাল থেকে তিনি টিভি নাটকে আলোচিত হতে থাকেন। বিশেষ করে আমাদের গল্প, মন ফড়িঙের গল্প, মনসুবা জংশন, নীলপরী নীলাঞ্জনা, রিভিশনের মত জনপ্রিয় নাটক দিয়ে নাট্যজগতে আস্থাভাজন হয়ে ওঠেন। আগে ঈদ উৎসব উপলক্ষ্যে বেছে বেছে কাজ করলেও একটা সময় এসে অভিনয়ে বেশ ব্যস্ত হয়ে পড়েন।

টু এয়ারপোর্ট, কথাবন্ধু মিথিলা, এলিয়েন ও রুম্পার গল্প, সময় চুরি, ল্যান্ডফোনের দিনগুলোতে প্রেম, কিংবা উদ্দেশ্য নেই, চিনিগুড়া প্রেম,আমার গল্পে তুমি, প্রিয় অভিমান, কথোপকথন, স্পর্শের বাইরে তুমি, হঠাৎ তোমার জন্যে, ম্যানিকুইন মুমু সহ অসংখ্য টিভি নাটকে অভিনয় করেন। অবশ্য একটা সময় এসে তিনি একই ধারার নাটক করায় সমালোচিত হতে থাকেন। বরষা, দূরবীন সহ একাধিক শর্টফিল্মেও অভিনয় করেছেন।

এখন অবশ্য কিছুটা সময় অভিনয় থেকে দূরে আছেন। মডেলিং করেছেন পন্ডস, জুঁই নারিকেল তেল, গ্রামীন ফোন সহ বেশ কয়েকটি বিজ্ঞাপনে। উপস্থাপক হিসেবেও তিনি সমুজ্জ্বল, বেশ কয়েকটি আলোচিত অনুষ্ঠানে উপস্থাপনা করেছেন, বিচারকের দায়িত্ব ও পালন করেছেন। চলচ্চিত্রে অভিষিক্ত হলেও, নানা কারণে আর তা হয়ে উঠেনি। এত ব্যস্ততার মাঝেও তিনি বিদেশ থেকে উচ্চশিক্ষা নিয়ে এসে ব্র‍্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেন। বর্নিল ক্যারিয়ারে মেরিল প্রথম আলো পুরস্কার, সিটিসেল চ্যানেল আই পুরস্কারসহ বহু পুরস্কার পেয়েছেন।

ব্যক্তিজীবনে তিনি ছিলেন এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত, কিন্তু সেখানেও রাহুর দশা ভর করলো। মডেল অভিনেত্রী মিথিলার সঙ্গে প্রায় এক যুগ সংসার করার পর সম্প্রতি রুপ নিয়েছে বিচ্ছেদে, যা তাঁর ভক্তদের ভীষন হতাশ করে। সংসারে রয়েছে একটি সন্তান। ব্যক্তিজীবনেও তিনি সব কিছু ছাপিয়ে একজন সফল মানুষ হতে পারেন এই আশা রাখি।

তাহসান আজকাল নাটক ও গানের বাইরে সিনেমাতেও নাম লিখিয়েছেন। জন নতুন ব্যান্ড গড়েছেন। ‘ইন্দালো’ নামের ব্যান্ডটি একটু একটু করে পরিচিতিও পাচ্ছে। পাশাপাশি অভিনয়ও করে যাচ্ছেন জন। ব্ল্যাক আজো টিকে আছে। পুরনো দুই সদস্য টনি ও জাহান আজো আছেন। বছর দুয়েক আগে তাঁদের পঞ্চম অ্যালবাম বের হয়েছে। গানগুলোও খারাপ না, শুধু যেন আগের সেই জাদুটা নেই।

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।