‘ট্রি সামাদ’-এর বিদায়

আব্দুল সামাদ শেখ রিকশা চালাতেন। ফরিদপুর এলাকায় তার নাম ছিল ‘ট্রি সামাদ’। এই নাম দেওয়ার কারণ হল, গাছ লাগাতে ভালবাসতেন তিনি।

গত ৪৮ বছর হর ভজনদাঙ্গা গ্রামে রোজ একটা করে গাছ লাগাতেন তিনি। তবে, এই সবই এখন অতীত। ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে শনিবার মারা গেছেন তিনি।

মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬০ বছর। অনেকদিন হল, অসুস্থ ছিলেন। সর্বশেষ গত দুই জুলাই তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই গত ১২ জুলাই তার একটা সফল অস্ত্রোপচারও হয়।

তবে, শেষ রক্ষা হয়নি।

রিকশা চালিয়ে যা উপার্জন করতেন তার সবটাই সামাদ ব্যয় করতেন গাছ লাগানোর পেছনে। হাইওয়ের দু’পাশে, সরকারী দপ্তরের উঠানে, মসজিদ-মন্দির কোনো জায়গায়ই বাদ থাকতো না।

প্রকৃতিপ্রেমী এই সামাদকে ২০১৭ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি সম্মাননা প্রদান করে দৈনিক পত্রিকা ডেইলি স্টার। সেখানে নিজের বাড়ি বানানোর জন্য তাকে এক লাখ টাকাও দেয়াও হয়।

সেই অনুষ্ঠানে এসে বলেছিলেন, ‘আজ এই অনুষ্ঠানের কারণে কোনো গাছ লাগানো হল না!’ পরে সেদিনই ওই অনুষ্ঠানের মিলনায়তনের সামনে একটা নারিকেল গাছ লাগান সামাদ।

সামাদ চলে গেলেন, রেখে গেলেন একটা প্রশ্ন – আমরা কী সামাদের এই গাছ লাগানোর রোজকার অভ্যাসটা ধরে রাখতে পারবো?

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।