ট্রাম্প ক্যাফে: মেক ঢাকাইয়া ফুড গ্রেট এগেইন!

খাবারের জন্য নয়, স্রেফ নামের কারণে গোটা বিশ্বব্যাপি আলোচিত হচ্ছে বাংলাদেশের এক রেস্টুরেন্ট। ঝিগাতলায় অবস্থিত রেস্টুরেন্টটির নাম ট্রাম্প ক্যাফে। বলাই বাহুল্য, রেস্টুরেন্টটির নামকরণ করা হয়েছে আমেরিকার আলোচিত-সমালোচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নাম অনুকরণ করে।

রেস্টুরেন্টটি যাত্রা শুরু করেছে প্রায় আড়াইমাস হতে চললো। রেস্টুরেন্টটির মালিক সাইফুল ইসলাম জানান, তিনি ডোনাল্ড ট্রাম্পের বড় ভক্ত; সেকারণেই এমন নামকরণ। গণমাধ্যমকে তিনি বলেন, ‘রেস্টুরেন্ট এখনো পুরোদমে শুরু হয়নি। শিগগিরই আমরা এর গ্র্যান্ড ওপেনিং করবো। সেখানে বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূতকেও আমন্ত্রণ জানাবো।’

রেস্টুরেন্টের ভেতর কার্ডবোর্ড দিয়ে বানানো মার্কিন প্রেসিডেন্টের বিরাট একটা প্রতিকৃতি আছে। সেটা আগত অতিথিদের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছে। অনেকেই প্রতিকৃতির সাথে সেলফি তোলেন, পোস্ট করেন সোশ্যাল মিডিয়ায়।

মার্কিন নির্বাচনের প্রচারণার সময় টেক্সাসের বেলভিলে ক্যাফের মালিক এর নাম পরিবর্তন করে রেখেছিল ‘ট্রাম্প ক্যাফে’। এই ঘটনা থেকে অনুপ্রাণিত হন সাইফুল। তবে, সেই ভাবনাটা বাস্তবায়ন করা সাইফুলের জন্য সহজ ছিল না। তিনিই যে এর আসল মালিক সেটা কর্তৃপক্ষকে বোঝাতে অনেক ঝক্কি পোহাতে হয়েছিল।

সাইফুল বলেন, ‘আমাকে বোঝাতে হয়েছিল এই রেস্টুরেন্টে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের কোনো ইন্টারেস্ট নেই। এরপর গত ১৭ জানুয়ারি আমি লাইসেন্স পাই। এর তিনদিন পর প্রেসিডেন্ট হিসেবে যাত্রা শুরু হয় ট্রাম্পের।’

ট্রাম্প ক্যাফেতে ট্রাম্পের নামে খাবারও মিলবে। মেন্যু লিস্টে ট্রাম্প ককটেইল, গ্রিন অ্যাপেল ট্রাম্প ককটেইল আছে। এই পানীয়র রেসিপি সাইফুল জেনেছেন তার এক আঙ্কেলের কাছ থেকে, যিনি আমার নিউ ইয়র্কে ডোনাল্ড ট্রাম্পেরই একটি রেস্টুরেন্টে ম্যানেজারের কাজ করতেন। পানীয় ছাড়াও এখানে ট্রাম্প স্যান্ডউইচ, ট্রাম্প ক্যাশেউনাট সালাদ, ট্রাম্প চপসুই পাওয়া যায়।

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।