চুলচেরা চরিত্র

একজন মানুষের ব্যক্তিত্বের খুব গুরুত্বপূর্ণ অংশ হল তার কেশবিন্যাস। কিন্তু, চুলের কাটিং কি পুরুষরা কোনো নির্দিষ্ট কারণে করে থাকেন? কে জানে, হতেও পারে। চুল দিয়েও অনেক সময় মানুষের চারিত্রিক বৈশিষ্ট প্রকাশ হতে পারে।

ঝাঁকড়া চুল

ঝাঁকড়া চুলের ছেলেরা খুব সৃজনশীল হয়। তবে, লোকে এমন কেশবিন্যাসের ছেলেপুলে দেখলে ভাইকিংস বা গল্পের চরিত্র ভেবে বসতে পারে। তবে, এদের জীবনে শ্যাম্পুকে খুব গুরুত্বপূর্ণ স্থান দেওয়া উচিৎ।

ছোট চুল

পৃথিবীতে সম্ভবত অর্ধেক পুরুষের চুলের কাট এমন হয়। তারা নিজেদের ‘রিয়েল মাচো’ ভাবতে পছন্দ করেন। তাদের মগজ পরিস্কার, সেন্স অব হিউমার দুর্দান্ত, ক্যারিশম্যাটিক চরিত্র হয়ে থাকেন অনেকে।

ন্যাড়া মাথা

ন্যাড়া মাথার লোকগুলো খুব বিচক্ষণ হন, তারা দূরদৃষ্টিসম্পন্ন। তারা সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা রাখেন। অন্তত তারা নিজেদের তেমনটা ভাবতেই স্বাচ্ছন্দবোধ করেন। তাদের হাসি সুন্দর জয়। এমন হেয়ারকাট তারাই পছন্দ করেন, যারা কোনো আদিখ্যেতার তোয়াক্কা করেন না। এমন পুরুষরা খুব বিশ্বস্ত হন।

মাঝখানে যারা সিঁথি করেন

এরা খুব ব্যবসায়িক চিন্তাধারার মানুষ। জীবনের প্রতিটা কাজ তারা একটা উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে করেন। তারা লাভ ছাড়া কিছুই করেন না।  এমন মানুষ কোনো কিছুর পরোয়া করেন না।

খাড়া চুল

চুলের এই ধরণটা খুবই জনপ্রিয়।  এমন পুরুষরা সকলের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হন। কারণ, তারা সবাইকে মাতিয়ে রাখতে জানেন।

মাঝারি চুল

রোমান্স এদের শুধু রক্তে নয়, হাড়েও আছে। তারা খুবই হ্যান্ডসাম হয়ে থাকেন সচরাচর। শুধু তাই নয়, এরা জীবনকে গুছিয়ে নিতে খুবই পারদর্শী। এমন পুরুষ নারীরা পছন্দ করেন। এই সুযোগের সদ্ব্যবহারও করেন অনেকে।

ফেড হেয়ারকাট

এটা খুব চালু একটা ফ্যাশন। এমন পুরুষ খুবই আত্মবিশ্বাসী হয়ে থাকেন। এর সাথে চেক শার্ট আর চাপ দাড়ি হলে তো কথাই নেই। এরা যুগের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে পছন্দ করেন।

ঝুটি বাঁধা

এরা আত্মবিশ্বাসী, সমালোচনায় ভয় পান না। এদের চরিত্র আসলে খুবই উপভোগ্য।

ব্রাইট সাইড অবলম্বনে

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।