কিছু করতেই লজ্জা পেতাম না: মাধুরী দিক্ষিত

নাচ ও বলিউড – এই দু’টি শব্দ এক সাথে উচ্চারিত হলে সেখানে অবধারিত ভাবেই আসবে মাধুরী দিক্ষিতের নাম। মাত্র ১৭ বছর বয়সে, সেই ১৯৮৪ সালে ‘অবোধ’ সিনেমা দিয়ে তিনি পা রেখেছিলেন বলিউডে।

সময় যত এগোয় মাধুরীর মাধূর্য্য যেন ততই বাড়তে থাকে। নব্বইয়ের দশকে এসে তিনি কোটি কোটি ভক্তের হৃদয়ের রানী বনে যান। ‘তেজাব’ সিনেমায় তার ‘এক দো তিন’, ‘বেটা’ সিনেমায় ‘ধাক ধাক কারনে লাগা’, ‘খলনায়ক’-এর ‘চোলি কে পিছে ক্যায়া হ্যায়’, ‘হাম আপকে হ্যায় কউন’ সিনেমায় সালমান খানের সাথে ‘দিদি তেরা দেবার দিওয়ানা’ কিংবা এযুগের সিনেমা ‘ইয়ে জাওয়ানি হ্যা দিওয়ানি’র ‘ঘাগড়া’ – সবগুলো গানেই তিনি নিজেকে বলিউডের ‘ড্যান্সিং ডিভা’ হিসেবে প্রমাণ করেছেন।

তার রূপ, তার হাসি কিংবা তার আভিজাত্য – সবকিছু এখনো অতুলনীয়। আজো বলিউডের নতুন নায়িকা আসলেই তার সাথে একবার হলেও তুলনা হয় এই মাধুরীর।

সেই মাধুরী সম্প্রতি নিজের শিশুবেলার একটা ছোট্ট গল্প শোনালেন ভক্তদের। তাও সেই গল্পটা তখনকার যখন মাধুরীর বয়স মাত্র সাড়ে তিন বছর। সেই বয়সেই, একবার ট্রেন যাত্রায় নেচেছিলেন তিনি।

নাচের শুরু কোথায়, একদম শৈশবে? – করণ থাপারের ‘ফেস টু ফেস’ অনুষ্ঠানে হাজির হয়ে তিনি এমন প্রশ্নের মুখোমুখি হন। উত্তরে তিনি বলেন, ‘হ্যা, সত্যি কথা বলতে স্কুলে থাকতে আমি সবই করতাম। কখনো ড্রামা, কখনো নাচ কিংবা বিতর্ক, গান – কোনোটাই বাদ থাকতো না। ওই সময় অনেক উদ্দীপনা কাজ করতো, কিছু করতেই লজ্জা পেতাম না। মনে আছে, মা প্রায়ই একটা ঘটনার কথা বলতো। আমরা ট্রেনে চেপে কোথাও যাচ্ছিলাম। আমি খুবই ছোট ছিলাম – সাড়ে তিন বছর। বয়স্ক কেউ একজন আমাকে জিজ্ঞেস করেছিল, “তুমি নাচ শিখো?” আমি উত্তর দিয়েছিলাম “হ্যা”। আবার বললো, “আমাকে একটু নাচ করে দেখাবে?” আমি উৎফুল্ল হয়ে বলেছিলাম, “কেন নয়!” ওপাশ থেকে মা চিৎকার করে ডাকে, “অ্যাই, এসব কি করছো তুমি, এখানে আসো, বসো এখানে, এটা তো নাচার জায়গা নয়।” ফলে, বলা যায়, নাচটা আমার পুরো জীবনের সাথেই জড়িয়ে আছে।’

বড় হওয়ার সাথে নাচের চর্চা বাড়ান মাধুরী। নাচে ভাল দখল থাকার কারণে মাত্র নয় বছর বয়সে কত্থক নাচে তিনি স্কলারশিপ পান। সেটা অবশ্য তার প্রথমবারের মত পত্রিকার খবরের শিরোনামে আসা নয়।

এর আগে মাত্র সাত-আট বছর বয়সে গুরু পুর্ণিমার উৎসবেও তিনি নেচেছিলেন। তখনই মহারাষ্ট্রের এক সাংবাদিক মাধুরীকে নিয়ে একটা আর্টিকেল লিখেছিলেন। সত্যি মনে রাখার মত এক শৈশব কাটিয়েছেন মাধুরী।

আর বলা ভুল হবে না যে, এই নাচ দিয়েই সমসাময়িক বাকি অভিনেত্রীদের থেকে নিজেকে কয়েকধাপ এগিয়ে নিয়েছেন মাধুরী। বয়স ৫০ পেরিয়ে যাওয়ার পর এখনও তিনি মোহনীয়!

– বলিউডবাবল.কম অবলম্বনে

Related Post

অলিগলি.কমে প্রকাশিত সকল লেখার দায়ভার লেখকের। আমরা লেখকের চিন্তা ও মতাদর্শের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। প্রকাশিত লেখার সঙ্গে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল তাই সব সময় নাও থাকতে পারে।